স্বস্তির জয় পেল রিয়াল মাদ্রিদ

48
চ্যাম্পিয়নস লিগে প্লজেনের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয় পেয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ। রিয়ালের হয়ে একটি করে গোল করেন বেনজেমা ও মার্সেলো। প্লজেনের একমাত্র গোলটি করেন হরোসভস্কি।

টানা পাঁচ ম্যাচ জয়হীন থাকার পর কথা উঠেছে রিয়াল মাদ্রিদ জিততে ভুলে গেছে। চ্যাম্পিয়নস লিগ আর লা লিগা মিলে টানা তিন ম্যাচে হার। এর মধ্যে আবার টানা গোলশূন্য থাকার রেকর্ডও আছে। এ দিকে বাতাসে ফিসফাস— কোচ লোপেতেগির চাকরিটা থাকছে তো? এত সমালোচনার পর চ্যাম্পিয়নস লিগে প্লজেনের বিপক্ষে ২-১ গোলের জয়ে রিয়াল সমর্থকদের মনে স্বস্তির বাতাস বয়ে যাওয়াটাই তো স্বাভাবিক।

বার্নাব্যুতে শুরু থেকেই বলের দখল নিয়ে খেলতে থাকা রিয়াল গোলের দেখা পেতে খুব বেশি সময় নেয়নি। ম্যাচের ১১ মিনিটেই বেনজেমার গোলে এগিয়ে যায় স্বাগতিকেরা। লুকাস ভাসকেসের ক্রস থেকে হেডে বল জালে জড়ান রিয়ালের ফরাসি এই ফরোয়ার্ড। ম্যাচের ৩৫ মিনিটে ইসকোর শিশুসুলভ ওই মিস না হলেই গোল ব্যবধান বাড়তে পারত। অন্যদিকে ৪৪ মিনিটে সমতায় ফিরতে পারত প্লজেন। মাত্র ছয় গজ দূরে থেকে বলে ঠিকমতো পা ছোঁয়াতে পারলেই বল জালে জড়াতে পারতেন প্লজেনের পেত্রজেলা। কিন্তু তিনি কী করলেন? বল মারলেন বারের ওপর দিয়ে!

দ্বিতীয়ার্ধের খেলা শুরুর মিনিট দশেক পরেই স্কোরলাইন ২-০ করেন মার্সেলো। মার্সেলো-ভালভের্দে-বেলের সমন্বিত আক্রমণে গোল পায় রিয়াল মাদ্রিদ। মার্সেলোর শট ঠিকঠাক ক্লিয়ার করতে পারেনি প্লজেনের রক্ষণ। বল পেয়ে যান ভালভের্দে। ভালভার্দের পাস ব্যাকহিল করেন গ্যারেথ বেল। ফের বল পান রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার মার্সেলো। মার্সেলোর শট অতিথিদের হার নিশ্চিত হয়। ৭১ মিনিটে বেনজেমার গোল অফসাইডের ফাঁদে পড়ে বাতিল হয়। ৭৮ মিনিটে হরোসভস্কির শটে গোলের দেখা পায় প্লজেন। এতে গোল ব্যবধান কমলেও জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে স্প্যানিশ জায়ান্টরাই।